মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

মামলার আবেদন

মামলার ধরণ

প্রাপ্ত মামলার সংখ্যা

নিষ্পত্তিকৃত মামলার সংখ্যা

গ্রাম আদলত থেকে উচ্চ আদালতে প্রেরন

বাতিল কৃত মামলার সংখ্যা

রায় বাস্তবায়নকৃত মামলার সংখ্যা 

আদায়কৃত অর্থের পরিমান

 

জুলাই মাসের শুরুতে মামলার জের

গ্রাম আদালতে প্রাপ্ত আবেদন

উচ্চ আদালত থেকে প্রাপ্ত

গ্রাম আদালতের মাধ্যমে

আপোষ

মীমাংসের মাধ্যমে

 

 

 

 

ফৌজদারী

২০

৩৯

০৪

১৬

১১

০৪

১৪

২৭

--

দেওয়ানী

১৫

২৭

০১

১৩

১২

০৫

১১

২৫

--

মোট

৩৫

৬৬

০৫

২৯

২৩

০৯

২৫

৫২

--

সর্বশেষ মামলার আবেদন

 

বরাবর,

        চেয়ারম্যান সাহেব

        ০৫ নং গোগ্রাম ইউ পি

 

বিষয়ঃ- স্বামী স্ত্রীর সুষ্ঠু বিচারের জন্য আবেদন।

 

     বাদী                                                           বিবাদী

মোঃ শমসের আলী                                           ১। মোঃ ডালিম

পিতা-মৃত- আঃ মজিদ                                       ২। পিতা-মোঃ মোজাম্মেল

সাং- প্রেমতলী - খেতুর                                           পিতা-মৃতঃ ঝাড়ু সরকার

পোষ্টঃ - প্রেমতলী                                            ৩। মোসাঃ মানুয়ারা বেগম   

গোদাগাড়ী,  রাজশাহী।                                          জং-মোঃ মোজাম্মেল হক

                                                               ৪। মোসাঃ তানজিলা

                                                                    পিতা-মোঃ মোজাম্মেল হক

                                                                সর্ব সাং- ফরাদপুর,পোষ্টঃ প্রেমতলী

                                                                        গোদাগাড়ী, রাজশাহী।

 

 

জনাব,

       বিনীত নিবেদন এই যে, আমি ০৬ নং মাটিকাটা ইউ পির ১ নং ওর্য়াডের পেমতলী খেতুর গ্রমের বাসিন্দা। আজ থেকে চার বছর আগে বিবাদী মোঃ ডালিমের সঙ্গে আমার কন্যা মোসাঃ নুরজাহান বেগমের বিবাহ দিই। বিবাহের পরপরই আমার কন্যা তার স্বামীর বাড়িতে সুখে শান্তিতে বসবাস করতে পারেনি তবুও আমার কন্যা তার বাড়িতেচার বছর যাবত ঘর সংসার করে আসতেছিল। আমার মেয়ের বিবাহ দেওয়ার পর পরই আমরা জানতে পারি যে, আমার জামাই বিবাদী ডালিমের এর আগে আরও দুইবার বিবাহ হয়েছিল। কিন্তু দঃখের বিষয়তার দুই স্ত্রীর কোনটাই তার ঘর সংসার করতে পারেনি। যাই হোক এত সব ঘটনার পরেও আমার কন্যা বিবাদী ডালিমের সঙ্গে ঘর সংসার করে আসছিল। কিন্তু গত ৬/৭ মাস আগে আমার কন্যাকে বিবাদী নিজে সহ তার পরিবারের সবাই মিলে আমার মেয়ের গলার চেইন কানের দুল এবং হাতের বালা কেড়ে নেই এবং রাত্রিতে মেরে তাড়িয়ে দেয়। আমার মেয়ে জ্বালা যন্ত্রনা সহ্য করতে না পেরে আমার বাড়িতে চলে আসে এবং বর্তমান ৬/৭ মাস থেকে আমার বাড়িতে অবস্থান করছে। আমার মেয়ের কেড়ে নেওয়া স্বর্ন গুলির ওজন তিনভরি। আমার মেয়ে অভিযোগ জানিয়েছে যে, তার স্বামীর পুরুষত্বা হারিয়ে ফেলেছে। আরোও অভিযোগ জানিয়েছে বিবাদী ডালিমের পরিবারের সব বিবাদীগুলো আমার মেয়েকে জোর করে কবিরাজী ঔষধ খাওয়াতে চেষ্টা করিলে আমার মেয়ে তা অস্বীকার করে ঔষধ না খাওয়ার কারনেও আমার মেয়েকে অন্যায়ভাবে মারধর করে শারিরিক নির্যাতন করেছে।

 

 

      অতএব মহোদয় আমার মেয়ের উপর নানাভাবে শারিরিক নির্যাতনের সুষ্ঠু বিচার করিতে জনাবের মর্জি হয়।

 

 

 

                                                                                                        

                                                                                                                 বিনীত নিবেদক

                                                                                                                  সামসের আলী  


Share with :

Facebook Twitter